Black Seed (Kalojira) Oil 100gm

৳ 200.00

Black Seed Oil 100gm – কালোজিরার তেল (Kalojira Oil) ১০০ গ্রাম

7 in stock

Category:

Description

করোনাসহ সকল রোগের জন্য কালোজিরার তেল (Black Seed Oil)-

আমরা সকলেই জানি কালিজিরার তেলের বিস্ময়কর শক্তির কথা। বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) বলেছেন, “তোমরা কালোজিরা ব্যবহার করবে, কেননা এতে একমাত্র মৃত্যু ব্যতীত সর্ব রোগের মুক্তি রয়েছে”। – তিরমিযি, বুখারি, মুসলিম।

কালো জিরার (Kalojira) ব্যবহার অনেক পুরানো। সৃষ্টির শুরুর আদিকাল  থেকে এখন পর্যন্ত কালো জিরা মসলা ও ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।  প্রাচীন ইতিহাসের দিকে ফিরে তাকালে দেখা যায়, কালোজিরাকে মানব দেহের জন্য মহৌষধ মনে করা হত ।  প্রাচীন কাল থেকে এখন আয়ুর্বেদিক, ইউনানি ও কবিরাজি চিকিৎসাতে ও কালো জিরার তেল ব্যাপক ব্যবহার করা হয়। যেমনঃ অষ্টম শতাব্দিতে কালো জিরার তেল দ্বারা ব্রনকাইটস ও ডায়রিয়ার চিকিৎসা করা হতো।

কালোজিরায় যে রাসায়নিক উপাদানগুলো আছে:
কালজিরার তেলে বিভিন্ন রাসায়নিক উপাদান বিদ্যমান আছে লিনোলিক, অলিক, স্টিয়ারিক, লিনোলিনিক,এসিড, প্রোটিন, নিজেলোন, গ্লুটামিক এসিড। এছাড়াও রয়েছে নিজেলিন, পটাসিয়াম, ফসফরাস, কেলসিয়াম, সোডিয়াম, মেগনেসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, কপার, আয়রন,জিংক।

চিকিৎসাবীদগণের মতে, অসুস্থ দেহে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, তাই নিজেকে সুস্থ রাখা অনিবার্য। আসুন জেনে নিই করোনাসহ বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি কমাতে কালিজিরার তেল ব্যবহারের কিছু নিয়মঃ

১. কালিজিরার তেলের সঙ্গে মধু ও তুলসী পাতার রস মিশিয়ে খাওয়া হলে জ্বর, ব্যাথা, সর্দি-কাশি উপশমে অবদান রাখতে পারে।
২. ঠান্ডাজনিত রোগ, সর্দি-কাশিতে গরম রং চায়ের কাপে কয়েক ফোটা কালিজিরার তেল মিশিয়ে পান করলে বেশ আরাম পাওয়া যায়।
৩. বুকে ও পিঠে কালিজিরার তেল মালিশে শ্বাসকষ্টের রোগী উপকার পেতে পারেন। এ ক্ষেত্রে হাঁপানিতে উপকারী অন্যান্য মালিশের সঙ্গে এটি মিশিয়ে ব্যবহারে উপকৃত হয়েছেন অনেকে।
৪. প্রতিদিন সকালে সমস্ত শরীরে কালিজিরার তেল মালিশ করে সূর্যের তাপে অবস্থান করা এবং কালিজিরার তেল সমপরিমাণ মধু দিয়ে খেয়ে আরাম পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন অনেক ব্লাড প্রেসারের রোগী।
৫. যারা গ্যাস্টিকে কষ্ট পাচ্ছেন, দুধ এর সাথে কালিজিরার তেল সেবন করে দেখতে পারেন। ইনশাল্লাহ অনেকের মতো উপকারকৃত হতে পারেন।
৬. কালিজিরার তেল ব্যবহার বহুমুত্র রোগীদের রক্তের শর্করার মাত্রা কমাতে সাহায্য করে এবং নিম্ন রক্তচাপকে বৃদ্ধি, উচ্চ রক্তচাপকে হ্রাসে সহায়তা করে।
৭. কপালে উভয় চিবুকে ও কানের পার্শ্ববর্তী স্থানে কালিজিরার তেল মালিশ, সেই সাথে খালি পেটে কালিজিরার তেল পান মাথা ব্যাথা নিরাময়ে বেশ প্রচলিত।
৮. শ্বাসকষ্টজনিত রোগ আছে এমন অনেকেই গরম পানিতে সামান্য মধু ও কালিজিরার তেল মিশিয়ে এর ধোঁয়া শ্বাসের সাথে নিয়ে এবং পরে সেই পানি পানের মাধ্যমে উপকৃত হয়েছেন বলে শোনা গেছে।